তুরস্কের পথে ইরান সীমান্তে নিখোঁজ সিলেটের আব্দুল মুমিত

স্টাফ রিপোর্ট :: ইউরোপে ঢোকার স্বপ্ন নিয়ে ঘর ছেড়েছিলেন সিলেটের গোলাপগঞ্জের আব্দুল মুমিত (৩৩)। এরপর গত ৬ মাস থেকেই তিনি নিখোঁজ।

মুমিত গোলাপগঞ্জের বুধবারীবাজার ইউনিয়নের বানিগাজী গ্রামের মৃত আমির উদ্দিনের ছেলে। তুরস্কে যাওয়ার পথে ইরান-তুরস্ক সীমান্তে নিখোঁজ হন তিনি।

তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ। এদিকে তাকে সেখানে নিয়ে যাওয়া দালালরাও এখন আর ফোন ধরছে না বলে জানিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

তারা জানান, তুরস্কে যাওয়ার জন্য তিনি প্রথমে দুবাই গিয়েছিলেন। পরে দালালের খপ্পরে পড়ার পর তারা নিয়ে যায় ইরানে। উরুমিয়া সীমান্তে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি পরিবারের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছিলেন। কিন্তু গত ২৯ জুন থেকে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

মুমিতের ভাই ফ্রান্স প্রবাসী জুনেদ আহমদ জানান, ইরানের উরুমিয়া সীমান্তে অবস্থান করছিলেন বলে তাকে জানানোর পরদিন তুরস্কে যাওয়ার কথা। কিন্তু এরপর থেকেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন।

তার সঙ্গে ইরানে অবস্থানরত হবিগঞ্জের বাসিন্দা দালাল আব্দুল মালিক ও ওমানে অবস্থানরত গোলাপগঞ্জের ফুলসাইন্দ এলাকার দালাল জসিম উদ্দিন প্রথমে জানায়, মুমিতকে তুরস্কের পুলিশ আটক করে জেলে রেখেছে। মুক্তি পেলে যোগাযোগ করবে। এরপর থেকে তাদের সাথেও আর যোগাযোগ সম্ভব হচ্ছেনা।

এনিয়ে গভীর হতাশা নেমে এসেছে তার পরিবারের সদস্যদের মধ্যে। কান্নাকাটি চলছেই। কিন্তু কোথাও কারও সহযোগীতা পাওয়ার কোন উপায় পাচ্ছেন না তারা।