সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির ৩৫তম বার্ষিক সাধারণ সভা সম্পন্ন

একাত্তর ডেস্ক :: সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম. এ. আহবাব বলেন, করোনা মোকাবেলায় চিকিৎসক ও নার্সরাই সারাবিশ্বে করোনায় সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত। তাদের এই সাহসিকতার কারণেই করোনায় আক্রান্ত অনেক রোগীই নতুন ভাবে জীবনলাভ করতে সক্ষম হয়েছেন। নার্সদের শুশ্রুষার কারণে করোনা যেমন রোগীদের কাছ থেকে বিদায় নিচ্ছে, তেমনি ডায়াবেটিস রোগীদেরকে স্বাভাবিক জীবন-যাপনে নার্সরা প্রশংনীয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় জিন্দাবাজারের পুরানলেনস্থ সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির সভাকক্ষে সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির ৩৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ডায়াবেটিক সেবায় পার্থক্য আনতে পারেন নার্সরাই। বর্তমানে এই করোনাকালীন সময়ে অত্র হাসপাতালের চিকিৎসক ও নাসর্দের বিরামহীন চিকিৎসাসেবা প্রদানের কারণে অত্র অঞ্চলের অনেক ডায়াবেটিহ রোগী নিয়মিত চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করতে পেরেছেন। আমার দীর্ঘ চাকুরী জীবনে আমি দেখেছি, ডায়াবেটিস রোগসহ অন্যান্য রোগের সুচিকিৎসায় বারডেম ব্যতিত সিলেট ডায়াবেটিক এন্ড জেনারেল হাসপাতাল চিকিৎসা সেবা প্রদানে বরাবরই অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। বৈশ্বক করোনা মহামারীর কারণে স্বাস্থ্যঝুকি এড়াতে পুরো বিশ্ব যখন ঘরবন্ধী তখন সমিতির সম্মানিত কোষাধ্যক্ষ এম. এ. মান্নান জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্ব-শরীরে সমিতির কার্যালয়ে নিয়মিত উপস্থিত হয়ে সমিতি ও হাসপাতালের কার্যক্রম সচল রাখতে প্রয়োজনীয় উপদেশ ও নির্দেশনার মাধ্যেমে সার্বক্ষণিক সব কিছু তদারকি করেছেন। সমিতির সাধারণ সম্পাদক লোকমান আহমদ সমিতির কার্যকরি কমিটির সম্মানিত সদস্যবৃন্দ ও হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে ফোনালাপের মাধ্যমে সর্বদা সমিতি ও হাসপাতালের কর্মকান্ড গতিশীল রেখেছেন। করোনা মহামারীর শুরুর প্রথম দিকে সিলেট ডায়াবেটিক হাসপাতালে পর্যাপ্ত স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী না থাকা সত্ত্বেও অত্র হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ললিত মোহন নাথ বিরামহীনভাবে জীবনের ঝুকি নিয়ে হাসপাতলে যে সামান্য সংখ্যক রোগী চিকিৎসা সেবা নিতে উপস্থিত হয়েছিলেন তাদেরকে যথাযথ চিকিৎসা সেবা প্রদানের মাধ্যমে তিনি করোনার সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে বিবেচিত হয়েছেন। এজন্য তাঁরা প্রশংসার দাবীদার।

ডায়াবেটিক সমিতির সভাকক্ষে জুমের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত ভার্চ্যুয়াল সভায় সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম. এ. আহবাব এবং পরিচালনা করেন সমিতির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন। সভার শুরুতেই পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতও করেন তিনি নিজেই। পবিত্র গীতা থেকে শ্লোক পাঠ করেন সমিতির সম্মানিত জীবন সদস্য অরুপ শ্যাম বাপ্পী। সভার শুরতে সমিতির সকল প্রয়াত জীবন সদস্য ও মরহুম জাতীয় ব্যক্তিত্বদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও তাঁদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করা হয়। উক্ত ভার্চ্যুয়াল সভায় শোক প্রস্তাব ও বিগত ২৭ ডিসেম্বর ২০১৯ ইংরেজী তারিখের অনুষ্ঠিত সমিতির ৩৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভার কার্যবিবরণী পাঠ করেন সমিতির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. নিজাম উদ্দিন। কোষাধ্যক্ষের বার্ষিক আয়-ব্যয়ে হিসাবের প্রতিবেদন পাঠ ও ২০২১ সালের প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন করেন সমিতির কোষাধ্যক্ষ এম. এ. মান্নান। সাধারণ সম্পাদকের বার্ষিক প্রতিবেদন-২০২০ উপস্থাপন করেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক লোকমান আহমদ। এরপর সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদন, কোষাধ্যক্ষের আর্থিক প্রতিবেদন, আয়কর রির্টার্ন প্রস্তুত ও অডিটর নিয়োগ এবং প্রস্তাবিত বাজেটের উপর মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন দেশে ও বিদেশে অবস্থানরত সমিতির সম্মানিত জীবন সদস্য যথাক্রমে সেলিম খান, এম. এ. আহাদ, আব্দুর রাজ্জাক, অধ্যাপক আজিজুর রহমান, মতিউর রহমান মতিন, সাংবাদিক নবাব উদ্দিন, সাব্বির চৌধুরী, আলাউদ্দিন আহমদ মুক্তা, ডা. নেসার আহমদ কায়সার, সাংবাদিক আব্দুর রশিদ রেনু, আবু তালেব মুরাদ, কামরুল ইসলাম, আবু মাছুম, আলিমুস সাদাত চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, হাসান কবীর চৌধুরী, আহমেদুল কিবরিয়া বকুল, ডা. সাহিদুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট পি. কে. রায়, রোটারীয়ান সাহিদুর রহমান, অম্বরীষ দত্ত, অ্যাডভোকেট মহব্বত খান, আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, আরব আলী, অ্যাডভোকেট শহিদুল ইসলাম, সিলেট ডায়াবেটিক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার প্রমূখ। উক্ত ভার্চ্যুয়াল সভায় দেশ ও বিদেশের দুই শতাধিক জীবন সদস্য জুম এর মাধ্যমে সংযুক্ত ছিলেন। সভায় সাধারণ সম্পাদকের বার্ষিক প্রতিবেদন, কোষাধ্যক্ষের বার্ষিক আয়-ব্যয় হিসাবের প্রতিবেদন, ২০২০ সালের আয়-ব্যয় নিরীক্ষার জন্য অডিটর নিয়োগ ও ২০২১ সালের প্রস্তাবিত বাজেট অনুমোদনের জন্য প্রস্তাব করেন সমিতির জীবন সদস্য সোলেমান আহমদ এবং তা সমর্থন করেন সম্মানিত জীবন সদস্য অরূপ শ্যাম বাপ্পী। এরপর উপস্থিত জুম অ্যাপ এ সংযুক্ত সম্মানীত জীবন সদস্যগণের সমর্থনে অনুমোদিত হয়। সভায় সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির কার্যকরি কমিটির সাধারণ সম্পাদক লোকমান আহমদ সমিতির কোষাধ্যক্ষ এম. এ. মান্নান উত্থাপিত আর্থিক প্রতিবেদনের জের ধরে বলেন, অত্র হাসপাতালের চলমান আর্থিক সংকট কাটিয়ে উঠা এবং নূন্যতম খরচে বিভিন্ন চিকিৎসাসেবা প্রাপ্ত অত্র অঞ্চলের গরীব অসহায় মানুষের চিকিৎসা প্রাপ্তির স্থল সিলেট ডায়াবেটিক এন্ড জেনারলে হাসপাতালকে টিকিয়ে রাখতে যার যার অবস্থান থেকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। সমিতির কোষাধ্যক্ষ এম. এ. মান্নান তার বক্তব্যে সমিতির ৩৪তম বার্ষিক সাধারণ সভায় জীবন সদস্য আব্দুল মালিক মারুফ প্রতিশ্রæত অনুদানের এক লক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর করায় সমিতির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের পাশাপাশি হাসপাতালের এক্স-রে মেশিনসহ অন্যান্য মেশিন ক্রয় ও বর্তমান আর্থিক দুরবস্থা নিরসনে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। সমিতির ও সভার সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম. এ. আহবাব এর সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে সিলেট ডায়াবেটিক সমিতির ৩৫ তম বার্ষিক সাধারণ ভার্চুয়াল সভার কার্যক্রম সমাপ্ত হয়।