কোম্পানীগঞ্জে পাথর কোয়ারিতে শ্রমিক হত্যায় মামলা

একাত্তর ডেস্ক :: সিলেটের কোম্পানীগঞ্জে উচ্চ আদালতের নির্দেশে পাথর কোয়ারীগুলো বন্ধ রয়েছে। বন্ধ কোয়ারীগুলোতে শ্রমিকদের দিয়ে গোপনে পাথর উত্তোলন করে যাচ্ছেন মালিক পক্ষ। কোম্পানীগঞ্জে বন্ধ থাকা কোয়ারিতে পাথর উত্তোলন কাজে নিয়োজিত কংস বিশ্বাস (৪০) নামের এক শ্রমিক নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামী বাদল সিংহ (৩২) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। সে কোম্পানীগঞ্জের মাঝেরগাঁও গ্রামের কালা সিংহের ছেলে।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) রাতে নিহত কংস বিশ্বাসের স্ত্রী বাসন্তী বিশ্বাস এই হত্যার অভিযোগ এনে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৩ জন এজহার নামীয় ও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করা হয়েছে। নিহত কংস সিংহ কোম্পানীগঞ্জের পূর্ব ইসলামপুরের জীবনপুর গ্রামের মৃত গোপাল বিশ্বাসের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি কে এম নজরুল জাহান কাজল। তিনি জানান, নিহত শ্রমি কংস বিশ্বাসের স্ত্রী হত্যার অভিযোগ এনে থানায় ৩ জনকে এজহার নামীয় ও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা করেন। পুলিশ মামলার প্রধান আসামী বাদল সিংহকে গ্রেপ্তার করেছে। মামলার অন্য আসামীদের গ্রেপ্তার করার জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

তিনি আরও জানান, বন্ধ কোয়ারী থেকে অগোচরে পাথর উত্তোলন করার সময় মঙ্গলবার কোম্পানীগঞ্জের উৎমা কোয়ারিতে চাপা পড়ে বাদল সিংহ নিহত হন।

একাত্তরেরকথা/ইআ