সিলেটে রিকশা মালিক ও শ্রমিকদের বিক্ষোভ সমাবেশ

বন্দরবাজার-চৌহাট্টা সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবীতে সিলেট জেলা রিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি. নং চট্ট-১৬৬৯ ও রিকশা মালিক-শ্রমিকদের যৌথ উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (২৮ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় সিলেট সরকারি আলিয়া মাদরাসা মাঠ থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নগরীর সিটি পয়েন্টে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

সিলেট জেলা রিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ইয়াছিন খানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. আবু বকর সিদ্দিকের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা বন্দরবাজার-চৌহাট্টা সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন জেলা রিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সহ সভাপতি শাহ মিজানুর রহমান, সহ সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক কোরবান আলী, অর্থ সম্পাদক মিজানুর রহমান মোল্লা, ক্রীড়া সম্পাদক বাহার উদ্দিন, রিকশা মালিক আব্দুস সুবহান, আনিছুর রহমান, রেনু মিয়া, মোবারক আলী, ইকবাল মিয়া, শহীদুল ইসলাম, কাশেম আলী, আবুল কাশেম, জহুরুল হক, নাসির চৌধুরী, আলমগীর হোসেন সালমান, রাসেল আহমদ, আনিছ মিয়া, আবুল কালাম, শ্রমিকনেতা ইকবাল হোসেন, লাল মিয়া, নুরুল হক, খোরশেদ আলম, জিল্লুল হক, এমদাদুল হক আব্দুল্লাহ, আব্দুল হেকিম প্রমুখ। বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে সিলেট জেলার অসংখ্য মালিক-শ্রমিকনেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, রিকশা শ্রমিকরা যৌক্তিক ও সঠিক আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে রাজপথে নেমে তাদের ন্যায্য দাবী আদায় করতে জানেন। তারা পরিশ্রমের মধ্যে সৎ পথে জীবিকা অর্জন করেন। বক্তারা হুশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক বন্দরবাজার-চৌহাট্টা সড়কে রিকশা চলাচল বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। অনতিবিলম্বে উক্ত ঘোষণা প্রত্যাহারের জোর দাবী জানান শ্রমিকরা।

অনথ্যায় রিকশা মালিক-শ্রমিক ঐক্যবদ্ধ হয়ে কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে। বক্তারা বলেন, রিক্সার জন্য নগরীতে যানজট সৃষ্টি হয়, এটা ভুল ধারণা। ফুটপাতে যদি হকার না বসে, গাড়ী চালকরা অবৈধ পার্কিং না করে তবেই যানজট মুক্ত নগরী হবে। অযথা শুধু শুধু রিকশার উপর দোষ চাপিয়ে একটি কুচক্রী মহল তাদের ফায়দা হাসিল করার চেষ্টা করছে। সেদিকে সচেতন হয়ে রিকশা-মালিক শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান।
-প্রেসরিলিজ

একাত্তরেরকথা/ইআ