সাংস্কৃতিক চর্চা ছাড়া উন্নত সমাজ বিনির্মাণ সম্ভব নয় : সালেহ আহমদ

স্টাফ রিপোর্ট :: ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সালেহ আহমদ বলেছেন, বাংলাদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে গড়তে হলে দরকার সাংস্কৃতিক পরিবর্তন। সেক্ষেত্রে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূলনীতির উপর ভিত্তি করে বাঙালি সংস্কৃতির শিকড়কে আকড়ে ধরতে হবে। সমাজকে উন্নত করতে হলে আমাদের শিক্ষায় দ্বীক্ষায় সাংস্কৃতিক অনুশীলন জরুরী। সাংস্কৃতিক চর্চা ও অনুশীলন ছাড়া উন্নত সমাজ বিনির্মাণ সম্ভব নয়।

এমসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সালেহ আহমদ প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করছেন

তিনি বলেন, এদেশের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ ফজরে নামাজ পড়ে, বিকেলে ওয়াজ শুনতে যায়। আবার রাতে সে যাত্রা পালা, মালজুরা গান দেখতে যায়। এটাই আসল বাংলাদেশের সংস্কৃতি। আমরা আমাদের ধর্মীয় কাজ যেমন নামাজ- রোজা পালন করি আবার বাঙালি ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতির সাথে একাত্ব হয়ে যাই। এটাই বাঙালি সাধারণ মানুষের প্রাণ। সুতরাং সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না।

তিনি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙ্গা মানে আমাদের হৃদয়ে আঘাত করা। বাংলাদেশকে আঘাত করা। কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাংচুরের নিন্দা জানানো ভাষা নেই। তবে এ দুঃসাহস আর দেখাবেন না, বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করবেন না। বাঙালি শান্তি প্রিয়, শান্তিতে থাকতে দিন।

ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজের সাংস্কৃতিক সংগঠন থিয়েটার মুরারিচাঁদের ৭ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ৮ম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতি সম্মান জানিয়ে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
করোনাকালিন ও এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে সংগঠিত গণধর্ষণের পর বন্ধ হওয়া কলেজে এটি প্রথম কোন অনুষ্ঠান। শনিবার সকালে থিয়েটার মুরারিচাঁদের মহড়াকক্ষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে সম্মান জানিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এমসি কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর পান্না রানী রায়, শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক তৌফিক এজদানী চৌধুরী, ইংরেজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর শফিউল আলম, সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের সভাপতি মিশফাক আহমেদ মিশু, সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, থিয়েটার মুরারিচাঁদের দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক ও অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জেবিন আক্তার।

থিয়েটার মুরারিচাঁদের নৃত্য পরিবেশন

হাসান আল মাসুমের পরিচালনায় ও রেজাউল করিম রাব্বির সভাপতিত্বে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দীর্ঘ বিরতির পর আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এমসি কলেজ শাখার ছাত্রলীগ নেতা হোসাইন আহমদ, সৌরভ দাস, শামীম আলী, রাসেল আহমদ, রুবেল আহমদ, দেলওয়ার হোসেন রাহি, আহমদ শিহাব খান, মোহনা সাংস্কৃতিক সংগঠনের ইমরান আহমদ, পল্লবী দাস সহ উপস্থিত ছিলেন মোহনা সাংস্কৃতিক সংগঠন, কবিতা পরিষদের নেতৃবৃন্দ ও শিল্পীবৃন্দ।

দুপুর ১২টায় থিয়েটার মহড়াকক্ষে থিয়েটার মুরারিচাঁদ ও মোহনা সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পীদের যৌথভাবে জাতীয় সংগীত গাওয়ার মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। নৃত্য, গান ও আবৃত্তি পরিবেশনের মাধ্যমে বহুদিন বন্ধ থাকা কলেজে আবার যেনো প্রাণ ফিরে আসে। একাত্ম হয়ে উঠেন থিয়েটার মুরারিচাঁদ, মোহনা ও কবিতা পরিষদের শিল্পী ও কলেজের বেশকিছু সাধারণ শিক্ষার্থী।

দর্শকের একাংশ

অনুষ্ঠানে ২০২০-২১ এই এক বছরের জন্য থিয়েটার মুরারিচাঁদের নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যের শেষে কমিটি উপস্থাপন করেন। নতুন কমিটিতে বর্তমান কমিটির সভাপতি রেজাউল করিম রাব্বিকে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক তুষার সরকারকে পুণরায় মনোনিত করা হয়েছে।

নতুন ঘোষিত কমিটির অন্যান্যরা হলেন সহ সভাপতি হাসান আল মাসুম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, সাংগঠনিক সম্পাদক উষা কান্ত বিশ্বাস, কোষাধ্যক্ষ রুহিত আচার্য, অনুষ্ঠান সমন্বয়ক জুয়েল কান্তি দাস, প্রচার সম্পাদক জাফরান মারুফ, দপ্তর সম্পাদক রিংকু মালাকার, সদস্য তাসরিন আক্তার, কামরুল ইসলাম।