অনলাইন সাংবাদিকতা আর ফেইসবুক লাইভ এক নয়

মুহিত চৌধুরী :: সাংবাদিকতা হলো রাষ্ট্রের ‘চতুর্থ স্তম্ভ’। বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যমে স্বনিয়ন্ত্রিত পদ্ধতিতে হলেও দায়িত্বশীলতা নিশ্চিত করা জরুরি। স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং নৈতিকতার মাধ্যমে মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নীতিকে উচ্চে তুলে ধরে কি সাংবাদিকতার চর্চা হচ্ছে। এ প্রশ্ন অনেকেরই।
আজকাল ডিজিটাল মাধ্যমের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ব্যবহার করে নিজের মতামত অনেকেই প্রকাশ করছেন। যা অনেক সময় সমাজ এবং রাষ্ট্রের জন্য অত্যন্ত ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়ায়। ফেইসবুক পেইজে লাইভ করতে গিয়ে তারা অজ্ঞতার কারণে এমন সব কথা বলেন যা রীতিমত বিব্রতকর। সিলোটের আলোচিত রায়হান হত্যাকা-ের পর এবং পুলিশের এসআই আকবরকে গ্রেপ্তারের সময় আমরা সে চিত্র দেখেছি। অনেক স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে তারা সীমান্তে দাঁড়িয়ে অবলীলায় লাইভ করেছেন। কেউ কেউ আবার এই ফেইসবুক পেইজকে ‘টিভি’ হিসেবেও নামকরণ করেন। এতে করে পাঠক এবং দর্শকরা বিভ্রান্ত হয়ে মুলধারার টিভি চ্যানেলে যুক্ত টিভি সাংবাদিকদের তুচ্ছ তাচ্ছিল্যে করেন। যা মোটেই কাম্য নয়।
আমাদের সমাজে ক্যামেরা হাতে থাকা কাউকে দেখলেই মনে করা হয় তিনি একজন বড় সাংবাদিক। ঠিক তেমনি মোবাইল ফোনে যারা ফেইসবুক লাইভ করেন তাদেরকেও অনেকে বলে ফেলেন ‘অনলাইন সাংবাদিক’ বা টিভি সাংবাদিক। এটি একটি মারাত্মক ভুল ধারণা। এই ধারণা শুধু যে সাধারণ মানুষ করেন সেটা নয়। শিক্ষিত, উচ্চ শিক্ষিত ব্যক্তি বা সমাজের কর্তাব্যক্তিরা ও এমন ধারণা পোষণ করেন। ফেইসবুকে কিছু একটা দেখলেই তারা অনলাইন নিউজ পোর্টাল বা অনলাইন সাংবাদিকতাকে দোষারোপ করেন।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আর অনলাইন গণমাধ্যম এক জিনিস নয়। কেউ কাগজে কিছু সংবাদ ছাপিয়ে যদি হাজার হাজার কপি বিতরণ করে সেই কাগজ যেমন কোনো সংবাদপত্র হবে না ঠিক তেমনি ফেইসবুকে বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ সংবাদ লিখে প্রকাশ করলে কিংবা লাইভ করলে সেটা অনলাইন সাংবাদিকতা, টিভি সাংবাদিকতা বা অনলাইন গণমাধ্যম হবে না।
একটি প্রিন্ট পত্রিকা প্রকাশ করতে যেমন ডিক্লারেশন নিতে হয় একটি অনলাইন নিউজ পোর্টাল করতেও সরকারের কাছ থেকে নিবন্ধন নিতে হয় বা নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে হয়। অফিস, স্টাফ, ট্রেড লাইসেন্স সবই লাগে কিন্তু ফেইসবুক কিংবা লিফলেট করতে সে রকম কিছুই লাগে না।
যারা অনলাইন সাংবাদিকতা যুক্ত হতে চান তাদেরকে গণমাধ্যমের নীতি নৈতিকতার উপর সম্যক জ্ঞান থাকতে হবে। একটি রিপোর্টে উল্লেখ করা প্রতিটি তথ্য শতভাগ নির্ভুল ও শুদ্ধ হতে হবে। সংবাদ প্রকাশ বা প্রচারের আগে প্রতিটি তথ্য বারবার খতিয়ে দেখতে হবে। কোনো অবস্থাতেই অনুমানের উপর ভিত্তি করে কোনো তথ্য দেয়া যাবে না। আর এটি হলে অনলাইন সাংবাদিকতা মানুষের আরো বেশি আস্থা অর্জন করবে।
লেখক : সাংবাদিক