ইরানের শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানীকে গুলি করে হত্যা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :: ইরানের অন্যতম শীর্ষ পরমাণু বিজ্ঞানী মোহসেন ফাখরিজাদেহকে বোমা নিক্ষেপ ও পরবর্তীতে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার ইরানের রাজধানী তেহরানের কাছে এ ঘটনা ঘটে। এ হামলার পেছনে ইসরাইলকে দায়ী করেছে ইরান।
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলার শিকার হওয়ায় হাসপাতালে নেওয়ার পর মারা যান মোহসেন ফাখরিজাদেহ। মোহসেন ফাখরিজাদেহ ইরানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের গবেষণা বিষয়ক সংস্থার প্রধান ছিলেন।

মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়, সশস্ত্র ব্যক্তিরা তার গাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় তার দেহরক্ষী ও দুষ্কৃতকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।

পশ্চিমা বিশ্বের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাকে ইরানের গোপন পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচির মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে বিবেচনা করে থাকে। ইরান নতুন করে পারমাণবিক কর্মসূচি শুরুর পর ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধিকরণ বাড়িয়েছে। এ নিয়ে উদ্বেগও প্রকাশ করছে পশ্চিমা দেশগুলো। এমন প্রেক্ষাপটে এ হামলার ঘটনা ঘটলো।

পরমাণু বিজ্ঞানী গুপ্তহত্যায় চরম প্রতিশোধের হুমকি দিয়েছে ইরান। ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র প্রধান কমান্ডার মেজর জেনারেল হোসেইন সালামি তার দেশের বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের গবেষণা ও উদ্ভাবন বিষয়ক সংস্থার চেয়ারম্যান মোহসেন ফাখরিজাদে হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় প্রতিশোধ গ্রহণের হুমকি দিয়েছেন।
এ হত্যাকাণ্ডের জন্য ইহুদিবাদীদের দায়ী করে এক টুইট করেছেন জেনারেল সালামি। তিনি বলেন, ইহুদিবাদীরা আমাদের পরমাণু বিজ্ঞানীদের হত্যা করছে। তবে শুধু তাদেরই জানা আছে আমরা এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ কোথায় নিয়েছি। আমরা এসব কথা ঘোষণা করি না কিন্তু ইহুদিবাদীরা তা ভালো করেই জানে।

আইআরজিসি’র প্রধান টুইটার বার্তায় আরও বলেন, আমরা সাম্প্রতিক অতীতে দেখিয়ে দিয়েছি শত্রুর কোনও বিদ্বেষী পদক্ষেপেরই জবাব দিতে আমরা ছাড়ি না।

২০১০ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত এই ১০ বছরে ইরানের ৬ জন পরমাণু বিজ্ঞানীকে বিভিন্নভাবে হত্যা করা হয়েছে। এসবের পেছনে ইসরাইলকে দায়ী করে আসছে ইরান।

এদিকে, ট্রাম্প এক টুইটে জানিয়েছেন, এই বিজ্ঞানীকে হত্যা করতে ইসরাইল চেষ্টা করছিল।
শুক্রবার অফিসিয়িাল ট্ইুটার পেইজে ইসরাইলি এক সাংবাদিকদের পোস্ট শেয়ার করে ট্রাম্প বলেন, মোহসেন ফাখরিজাদেহকে হত্যায় অনেক বছর ধরেই চেষ্টা করে আসছিলো ইসরাইলি গোয়েন্দা সংস্থা- মোসাদ।
এছাড়াও টুইট বার্তায় মোহসেন ফাখরিজাদেহকে ইরানের পরমাণু অস্ত্র কর্মসূচির কারিগর বলেও দাবি করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।