তুরস্কে ব্যর্থ অভ্যুত্থানে জড়িত ৩৩৭ জনের যাবজ্জীবন সাজা

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :: তুরস্কে সেনা অভ্যুত্থান ও সরকার উৎখাতের ষড়যন্ত্রের দায়ে সেনা কর্মকর্তাসহ ৩৩৭ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার তুরস্কের একটি আদালত এ রায় ঘোষণা করে। ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টার অভিযোগে সামরিক বাহিনীর প্রায় ৫০০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছিলো। দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ১০ জন সাধারণ নাগরিকও রয়েছেন।

২০১৬ সালে ১৫ জুলাই তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগানকে রাজধানী আঙ্কারার কাছের একটি বিমান ঘাঁটি থেকে উৎখাতের চেষ্টা শুরু হয়। এই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছানির্বাসিত ধর্মগুরু ও ব্যবসায়ী ফেতুল্লাহ গুলেনকে দায়ী করে আসছে তুরস্কের সরকার।

যাবজ্জীবন দন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে অন্তত ২৫ জন যুদ্ধবিমানের পাইলট রয়েছেন। দন্ডপ্রাপ্তরা কোনো প্যারোল সুবিধা পাবেন না। আদালতের রায়ে বিমান বাহিনীর সাবেক কমান্ডার আকিন ওজর্তেকে সংসদ ভবনসহ গুরুত্বপূর্ণ সরকারি ভবনগুলোয় বোমা হামলা চালানোর অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

২০১৬ সালের ১৫ জুলাই সরকার পতনের ওই প্রচেষ্টায় সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত হয় আড়াই শতাধিক মানুষ। সেই সময়ে বন্দি করা হয় দেশটির তৎকালীন সেনাপ্রধান ও বর্তমান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী হুলসি আকারকে। কারণ, তিনি এই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা সমর্থন দেননি।অভ্যুত্থানের চেষ্টারত সেনারা বিমান হামলা চালালেও রাস্তায় অবস্থান নিয়ে রুখে দেয় সাধারণ মানুষ।

ব্যর্থ অভ্যুত্থানের পর দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করে ন্যাটো সদস্যভুক্ত এ দেশটির সরকার। শুরু হয় গ্রেফতার অভিযান। ষড়যন্ত্রের অভিযোগে আটক করা হয় ২ লাখ ৯২ হাজার মানুষকে। এর মধ্যে ১০ হাজার সেনা। বরখাস্ত করা হয় আরো দশ হাজার সেনাসদস্য। সেই সাথে দুই হাজার ৭৪৫ জন বিচারককেও আটক করে দেশটি।

সুত্র : আল জাজিরা