গোলাপগঞ্জে স্বামীর ঘুষিতে স্ত্রীর মৃত্যু

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি :: আব্দুল করিম ও সোফিয়া বেগম দম্পতি বিগত পাঁচ মাস থেকে গোলাপগঞ্জের ঢাকাদক্ষিণ ইউপির রায়গড় (ভটরপাড়া) গ্রামে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী রফিক মিয়ার বাড়িতে কেয়ারটেকার হিসেবে বসবাস করছিলেন আব্দুল করিম (৪৩)।

জকিগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব খলাছড়া গ্রামের মৃত রকিব উদ্দিনের ছেলে তিনি। সোফিয়া বেগম (২৯) আব্দুল করিমের স্ত্রী ও একই এলাকার পশ্চিম বিনেরবন্দ গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের মেয়ে।

দাম্পত্য জীবনে তাদের রয়েছে আলী হোসেন (৮) ও মাইশা আক্তার মুন্নি (৫) নামে দুই সন্তান। টুকটাক মনোমালিন্য-মতবিরোধ-ভালোবাসা নিয়েই চলছিল তাদের সাংসারিক জীবন। কিন্তু রোববার সকালে ঘটে গেছে এক অঘটন। ছেদ পড়েছে দীর্ঘ সাংসারিক জীবনে। লাল শাক চাষ নিয়ে বাকবিতন্ডায় স্বামী আব্দুল করিমের কিল-ঘুষিতে স্ত্রী সোফিয়ার মৃত্যু হয়েছে। স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা যায়, ৫/৬ দিন আগে বাড়ির মালিক রফিক মিয়া লাল শাকের বীজ বপনের জন্য আব্দুল করিমের কাছে দিয়েছিলেন। সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও বীজ রোপণ না করায় রোববার সকালে আব্দুল করিম ও তার স্ত্রী সোফিয়া বেগমের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়।

একপর্যায়ে স্বামী উত্তেজিত হয়ে স্ত্রীকে কিল-ঘুষি মারেন। এতে সোফিয়া জ্ঞান হারান। কিছুক্ষনের মধ্যে তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। পরে লাশের পাশে বসে বিলাপ করতে দেখা গেছে স্বামী আব্দুল করিমকে। বার বার আর্তনাদে মূর্ছা যাচ্ছিলেন তিনি। ছোট্ট অবুঝ দুটি শিশু আলী ও মাইশাও মেঝেতে পড়ে থাকা মায়ের লাশের পাশে আর্তনাদ করতে থাকে। এসময় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণ হয়।

খবর পেয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশ উদ্ধার করে ও স্বামী আব্দুল করিমকে (৪৩) পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী।