যেনো চাঁদ উঠেছিলো গগনে

সাঈদ চৌধুরী টিপু :: ক্রিকেটে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যকার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচ। জিততে হলে বাংলাদেশের প্রয়োজন শেষ বলে ছয় রান। ক্রিজে থাকা ব্যাটসম্যান বল উড়িয়ে মারলেন আকাশে। একদম সীমানার ওপারে গিয়ে পৌঁছে সে বল। টিভির সামনে থাকা দর্শকরা গগনবিদারী উল্লাসে কাঁপিয়ে তুললেন চারপাশ। সিলেট নগরীতে যেনো এমনটিই ঘটলো বুধবার সন্ধ্যায়। ৩১ ঘণ্টা বিদ্যুৎহীন থাকার পর সন্ধ্যায় যখন ফিরে এলো বিদ্যুৎ চিৎকারে কেঁপে উঠে চারপাশ। নগরীর আম্বরখানা, হাউজিং এস্টেট, খাসদবীর, টিলাগড়সহ যেসব এলাকায় ফিরে আসে বিদ্যুৎ সেসব এলাকায় প্রচণ্ড আনন্দধ্বনি শোনা যায়। বিদ্যুত ফিরে আসতেই পথে থাকা মানুষগুলো দৌড়ে ঘরের পথ ধরেন, পকেটে থাকা মোবাইল ফোনটি চার্জ করার জন্য। তাদের দৌড় দেখে অনেকেরই মনে হয়েছে যেনো ২৯ রমজান শেষে হঠাৎ ঈদের চাঁদ দেখা যাওয়ায় কেনাকাটা বাকি থাকা লোকজনের ছোটাছুটির দৃশ্য এটি। বিদ্যুৎ ফিরে আসার পর বাসাবাড়িতে একের পর এক বাতি জ্বলে উঠতে থাকে। পানির পাম্পগুলো সচল হতে থাকে ঘরঘর শব্দে। প্রাণ পায় ঘরে ঘরে থাকা রেফ্রিজারেটগুলোও।