প্রায় ৩২ ঘণ্টা পর আলো জ্বললো বিদ্যুতের

স্টাফ রিপোর্ট :: প্রায় ৩২ ঘণ্টা অন্ধকারে থাকার পর কাঙ্খিত বৈদ্যতিক আলো জ্বলে উঠলো সিলেটে। এরমধ্যে মানুষের পানির হাহাকার, মোমবাতির হাহাকার, মোবাইল চার্জ ও নেটওয়ার্কিং হাহুতাশ কাটিয়ে সিলেটের বিদ্যুৎ আবার ফিরে পেয়েছে।
বুধবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬ টা ৩৮ মিনিটে সিলেটের বিদ্যুৎ ফিরে আসে। গতকাল মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকাল ১১টার দিকে বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি (পিজিসিবি) সিলেটের কুমারগাঁও উপকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বিদ্যুহীন হয়ে পড়ে পুরো সিলেট।
বিদ্যুৎহীন প্রায় ৩২ ঘণ্টা কাটিয়ে আবার নগরীর বিভিন্ন জায়গায় বৈদ্যতিক আলো জ্বলে উঠে।
বুধবার দুপুরে পিডিবির সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীলরা জানিয়েছিলেন, বুধবার বিকেলের দিকে ডিভিশন ১ ও ২-এর আওতাধীন এলাকাগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে। যদিও বলা হয়েছিলো ‌’টেস্ট রান’ হিসেবে বিদ্যুৎ চালু করবে।
তারই ধারাবাহিকতায় ‘টেস্ট রান’ হিসেবে চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার, আলিয়া মাদরাসা, রিকাবিবাজার, লামাবাজার, আম্বরখনা, কাজলশাহ, ওসমানী মেডিকেল, তালতলা, কাজিরবাজার, বন্দবাজার, উপশহর, শিবগঞ্জ, টিলাগড়, রায়নগর, এসমসি কলেজ এলাকা, মির্জাজাঙ্গাল, শাহী ঈদগাহ, হাউজিং এস্টেট, মহাজনপিট্ট, মুরাদপুর, আখালিয়া, মদিনা মার্কেট, বাগবাড়ি, শেখঘাট ইত্যাদি জায়গায় বিদ্যুৎ চালু হয়েছে।
দুটি পাওয়ার ট্রান্সফরমার-এর জায়গায় একটি দিয়ে আপাতত বিদ্যুৎ চালু করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পিডিবির প্রধান প্রকৌশলী খন্দকার মোকাম্মেল হোসেন।
তিনি আহ্বান জানান, আপাতত কম লোড ভাগ করে বিভিন্ন ফিডারে বিদ্যুৎ দেয়া হয়েছে। তাই বিদ্যুৎ আসার সাথে সাথে সবাই একসঙ্গে ফ্রিজ, মটরসহ ভারি ইলেকট্রনিক সামগ্রী চালু আপাতত করবেন না।