সপ্তাহের ব্যবধানে পেরুতে তৃতীয় প্রেসিডেন্ট

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক :: নতুন একজন অন্তর্র্বতী প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করেছে পেরুর কংগ্রেস। এর ফলে এক সপ্তাহের ব্যবধানে তৃতীয় রাষ্ট্রপ্রধানের দেখা পেল দেশটি। আলজাজিরা এক প্রতিবেদনে জানায়, দেশটির অন্তর্র্বতীকালীন সরকারের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন কংগ্রেস সদস্য ফ্রানসিসকো সাগাস্তি। আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন পর্যন্ত দেশটিকে নেতৃত্ব দেবেন ৭৬ বছর বয়সী এই প্রকৌশলী। ফ্রানসিসকো একজন গবেষক ও লেখক। এক সময় বিশ্ব ব্যাংকের কর্মকর্তাও ছিলেন তিনি।
শনিবার বিক্ষোভের জেরে পদত্যাগ করেন অন্তর্র্বতী প্রেসিডেন্ট ম্যানুয়েল মেরিনো। কংগ্রেসের এই সাবেক স্পিকার দেশটির প্রেসিডেন্ট মার্টিন ভিজকারার স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন।
দুর্নীতি ও ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে অভিশংসনের মুখে পড়ে গত সোমবার প্রেসিডেন্টের পদ হারান ভিজকারা। যদিও তিনি নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন।
তবে পার্লামেন্টে ক্যু ঘটার অভিযোগ তুলে রাজধানী লিমায় রাস্তায় নেমে আসে হাজার হাজার মানুষ। তারা প্রেসিডেন্ট মেরিনোকে মেনে নিতে অস্বীকৃতিও জানায়।
বিক্ষোভ দমনে পুলিশ গুলি চালালে দুই শিক্ষার্থীর নিহত এবং আহত হন বহু। এ ঘটনায় মেরিনোর ওপর পদত্যাগের চাপ তৈরি হয়।
করোনা মহামারির ধাক্কায় শতাব্দীর সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক পরিস্থিতির মুখে রাজনৈতিক সংকটে পড়ে লাতিন আমেরিকার দেশটি।
পুলিশি নিষ্ঠুরতার প্রতিবাদে রবিবার মেরিনো সরকারের ১২ জন মন্ত্রী পদত্যাগ করেন। এরপর দায়িত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট মেরিনোও।
সোমবার কংগ্রেসের ভোটে নির্বাচিত হয়ে এক সপ্তাহের মধ্যে পেরুর তৃতীয় প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতা গ্রহণ করেন ফ্রানসিসকো।

সুত্র : আল জাজিরা