তবে কি মেনে নিলেন ট্রাম্প?


একাত্তর ডেস্ক :: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল ঘোষণা হয়ে গেছে বেশ কয়েকদিন আগেই। এখন চলছে নবনির্বাচিত জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানানোর স্রোত। এতকিছু যখন চারদিকে; তখন বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট ভাবা তো দূরের কথা; নিজের হারটাই মেনে নিচ্ছেন না ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে এবার বোধহয় বাতাস ঘুরেছে অন্যদিকে। টানা কয়দিন ধরে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বড় ধরনের কারচুপি হয়েছে অভিযোগ করে আসলেও দুই একদিন তার সুর কিছুটা নরমই মনে হচ্ছে। এরমধ্যে রোববার আবার এক টুইট করে বসেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

টুইট বার্তায় অনেকটা বাইডেনের জয় স্বীকারই করে নিয়েছেন তিনি। তবে তুলেছেন সেই পুরনো কারচুপির অভিযোগও। টুইটারে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘তিনি জিতেছেন, কারণ নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে। বিবিসি এই টুইট বার্তার বরাত দিয়ে লিখেছে, এর মাধ্যমে নিজের পরাজয় স্বীকার করে বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট পদে বিজয়ী স্বীকার করে নিয়েছেন ট্রাম্প। তিনি বলতে আসলে বাইডেনকেই বুঝিয়েছেন তিনি।

এর আগে শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে সুর নরম করে ট্রাম্প অপ্রাসঙ্গিকভাবেই বলে ফেলেন, পরবর্তী প্রশাসন কে চালাবেন ‘তা সময়ই বলে দেবে’। এর মাধ্যমে তিনি পরাজয় স্বীকারের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছান বলে বিশ্লেষকদের মত।

গত ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই নির্বাচন ঘিরে বেশ আগে থেকেই জালিয়াতি হতে পারে বলে অভিযোগ করে আসছেন ট্রাম্প। নির্বাচনের দিন এবং ভোট গণণার সময় টানা কয়দিন ধরে ভিত্তিহীন নানা অভিযোগ করে আসছিলেন তিনি। ভোটে হেরে আদালত পর্যন্তও গেছে তার দল রিপাবলিকান-এর সমর্থকরা। আমেরিকার কিছু এলাকায় এই নির্বাচন ঘিরে তার সমর্থকরা সহিংসতাও চালিয়েছেন। তবে সর্বশেষ বাইডেনকেই বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন ৩০৬টি ইলেক্টোরাল কলেজ ভোট নিশ্চিত করেছেন। জয়ের জন্য তার দরকার ছিল ২৭০ ভোট। ট্রাম্প পেয়েছেন মাত্র ২৩২টি ইলেক্টোরাল ভোট। ট্রাম্পের চেয়ে বাইডেন ৭৪টি ভোট বেশি পেয়েছেন।