বড়লেখায় আমির হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ১

বড়লেখা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় প্রতিপক্ষের নৃশংস হামলায় আমির উদ্দিন (৬০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হওয়ার ঘটনায় পুশিল একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

ঘটনার প্রায় দুই মাস পর শনিবার দুপুরে জুড়ী থানা এলাকায় তদন্তকারী কর্মকর্তার নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহারনামীয় আসামি আব্দুল্লাহকে (২৬) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আব্দুল্লাহ বড়লেখা উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নের নিজবাহাদুরপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে।

৯ সেপ্টেম্বর ভোররাতে উপজেলার নিজবাহাদুরপুর ইউনিয়নের নিজবাহাদুরপুর এরালবিলের বাউরিখাল এলাকায় হামলার এই ঘটনা ঘটে। এদিন জিহ্বা কাটা, দাঁত ভাঙা ও মাথাসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে জখম অবস্থায় স্বজনরা আমির উদ্দিনকে উদ্ধার করে প্রথমে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে ১৫ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান।

মামলার এজাহার ও পুলিশ সূত্র জানা গেছে, আমির উদ্দিন স্ত্রীকে নিয়ে প্রতিরাতে নিজবাহাদুরপুরের এরালবিলের বাউরিখাল নামক স্থানে মাছ ধরতেন। সেখানে অস্থায়ী একটি ঘরে তারা রাত্রিযাপন করতেন। ৮ সেপ্টেম্বর রাত ১১টার দিকে বাউরিখালে মাছ ধরতে যান। পরদিন ৯ সেপ্টেম্বর সকাল ৭টার দিকে আমিরের এক ভাতিজার মাধ্যমে খবর পেয়ে স্থানীয় সাধু কালীবাড়ি টিলা এলাকায় তাদের অজ্ঞান অবস্থায় পান স্বজনরা। এসময় স্বজনরা আমির উদ্দিনের জিহŸা কাটা, দাঁত ভাঙা ও মাথাসহ শরীরের বিভিন্নস্থানে জখম দেখতে পান। মুমূর্ষু অবস্থায় তারা তাকে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে সিলেট ওসামানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। হাসপাতালে মুমুর্ষ অবস্থায় আমির স্বজনদের কাছে ঘটনার বিবরণ দেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৫ সেপ্টেম্বর তিনি মারা যান। আমির উদ্দিন নিজবাহাদুরপুর গ্রামের মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে।

এরআগে ১১ সেপ্টেম্বর আমির উদ্দিনের মেয়ে জেনেফা বেগম জবা বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের ১১ জনের নাম উল্লেখ করে বড়লেখা থানায় একটি মামলা করেন। তিনি মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন ১ থেকে ৩ নম্বর আসামির সাথে ভিকটিমের (তার বাবার) পূর্ব বিরোধ ও মনোমালিন্য চলছিল। যার কারণে পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালানো হয়।
শনিবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন দেবনাথের নেতৃত্বে পুলিশ জুড়ী থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার এজাহারনামীয় আসামি আব্দুল্লাহকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বড়লেখা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) রতন দেবনাথ শনিবার সন্ধ্যায় বলেন, ‘বৃদ্ধের ওপর নৃশংস হামলা চালানো হয়। সংকটাপন্ন অবস্থায় স্বজনরা তাকে হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর তার মেয়ে বাদী হয়ে মামলা দেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃদ্ধ মারা যান। মামলার পরপর আসামিরা পলাতক হয়। তাদের গ্রেপ্তারে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়।

শনিবার এজাহারনামীয় এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারে সম্ভাব্য স্থানে অভিযান অব্যাহত আছে। ঘটনার মূলরহস্য উদঘাটনের লক্ষ্যে গ্রেপ্তারকৃতের রিমান্ড চাওয়া হবে।’

এক/বপ্র/এক