যুক্তরাষ্ট্রের ডায়রি: গোঁ ধরে আছেন ট্রাম্প

হেলাল উদ্দীন রানা, আমেরিকা থেকে :: মার্কিন নির্বাচন শেষ হলেও ক্ষমতা হস্তান্তর প্রশ্নে বাড়ছে শঙ্কা। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এখনও তার পরাজয় না মানায় তা আরো জটিল হচ্ছে ক্রমশ। ব্যাটেলগ্রাউন্ড জর্জিয়া ও আরিজোনায় ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জোসেফ বাইডেন বিজয়ী হয়েছেন। নর্থ ক্যারোলিনায় জয়লাভ করেছেন রিপাবলিকান বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প শুক্রবার সিএনএন, এবিসি, এনবিসি ও এমএসএনবিসি মার্কিন নির্বাচনে ফলাফল ঘোষণার বাকি থাকা তিনটি রাজ্যের ফল ঘোষণা করেছে। নির্বাচনে বিশাল জয় পেয়েছেন ডেমোক্রাট পার্টির প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট জোসেফ আর বাইডেন। ২৭০ ইলেক্টোরাল ভোটের দৌড়ে তিনি মোট ৩০৬টি ইলেক্টোরাল ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২ ইলেক্টোরাল ভোট। ২০১৬ তে ট্রাম্প ৩০৬টি ইলেক্টোরাল ভোট পেয়ে প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।
ডোনান্ড ট্রাম্প এখনও পরাজয় মেনে নেননি। তার প্রশাসন নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট বাইডেনের ট্র্যানজিশন টিমকে কোনো প্রকারের সহযোগিতা করছে না। ক্ষমতা হস্তান্তর প্রক্রিয়ার জন্য ফেডারেল সরকারের ১০ মিলিয়ন ডলারের ফান্ডও অবমুক্ত করা হয়নি। সামান্য ব্যতিক্রম ছাড়া রিপাবলিকান নেতারাও যেনো প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভয়ে জড়োসড়ো হয়ে মুখে কুলুপ এঁটে বসে আছেন। ট্রাম্পের মতিগতি বুঝে উঠা কঠিন হয়ে পড়েছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ভোট জালিয়াতির বিষয়টিকে হাস্যকর ও ভূয়া বলে খারিজ করে দিয়েছে ফেডারেল নির্বাচনী কাউন্সিল। ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটি,ইউএস ইলেকশন অ্যাসিস্ট্যানন্স কমিশন, রাজ্য পর্যায়ের নির্বাচন পর্যবেক্ষণকারী কর্মকর্তা ও ভোটিং মেশিন প্রস্তুতকারী সংস্থার প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে এই কাউন্সিল গঠিত।
সংস্থার প্রধান বেন হোভল্যান্ড বলেন,ভোট জালিয়াতির দাবী সম্পূর্ণ মিথ্যা। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গত বছর এই পদে তাকে নিয়োগ দেন এবং যথারীতি সিনেটে তার মনোনয়ন প্রত্যায়িত করা হয়। ভোট জালিয়াতি নিয়ে করা মামলার মধ্যে কয়েকটিতে মিশিগান ও পেনসেলভেনিয়ায় হেরে গেছে ট্রাম্প ক্যাম্পেইন। নির্বাচনে পরাজয়ের পর শুক্রবার হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে আয়োজিত করোনা বিষয়ক টাস্কফোর্সের সভায় প্রথম জনসমক্ষে আসেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তিনি বলেন,সময়ই বলে দেবে কোন প্রশাসন ক্ষমতায় বসবে। তিনি পরাজয় মেনে নেয়া দুরে থাক বিজয়ী বাইডেনের নামও নেননি। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প গতকাল সাংবাদিকদের কোন প্রশ্ন নেননি। খুবই অল্প সংখ্যক দর্শক শ্রোতার উপস্থিতিতে রোজ গার্ডেনের অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিক ও সংবাদ মাধ্যমের কর্মীরা নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন শুরু করলে তিনি দ্রুতই স্থান ত্যাগ করেন।
জর্জিয়া রাজ্যের ভোট হাতে পুনঃগণনা শুরু হয়েছে। জর্জিয়ায় বাইডেন প্রায় ১৫ হাজার ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন । হাতে গননায় সময় লাগলেও ভোটের হিসেবে তেমন তারতম্য হবে না বলে জানা গেছে। বাইডেনের ক্ষমতা গ্রহণের প্রক্রিয়ার কাজ এগিয়ে চলেছে। তার দীর্ঘ দিনের পরীক্ষিত, বিশ্বস্ত ও ডেমোক্রাট শিবিরের কাছে গ্রহণযোগ্য বলে বিবেচিত রন ক্লাইন কে তার চিফ অব স্টাফ হিসেবে নিয়োগ প্রদান করেছেন। বাইডেন ‘প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট’ হিসেবে রাষ্ট্রীয় অতি গোপনীয় ইন্টিলিজেন্স বিফ্রিং পাওয়ার অধিকারী হলেও ট্রাম্পের জেদের কারণে তা বিলম্বিত হচ্ছে। তবে এনিয়ে রিপাবলিকান শিবির থেকেও জোর দাবী উঠছে বাইডেনের পক্ষে। এদিকে, শনিবার ট্রাম্পের কট্টর সমর্থকরা ওয়াশিংটনে তার পক্ষে মেগা মার্চে জড়ো হন। ওয়াশিংটন নগরীর ফিড্রম প্লাজা কেন্দ্রিক সমাবেশে বাইরের রাজ্য থেকেও লোকজন অংশ নেন। আগে থেকে অবস্থান নেওয়া বাইডেন সমর্থকরাও ছিলেন সেখানে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্ষমতা আঁকড়ে থাকতে মরিয়া হয়ে উঠলেও শেষ বেলায় তাকে হোয়াইট হাউস থেকে পরাজয় আর অপমান নিয়ে বেরিয়ে যেতে হবে এমনটাই বলেছেন পর্যবেক্ষক মহল।