বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে বাড়ছে ধর্ষণ ও খুন

ধর্ষণ ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশে বক্তারা

একাত্তর ডেস্ক :: বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে দেশে একের পর এক খুন, ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে। বর্তমান সরকার জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। দেশের জনগণকে রাজপথে নেমে আন্দোলন করে নিজেদের অধিকার আদায় করতে হবে। একটি সুন্দর সুখি ও সাম্যের সমাজ প্রতিষ্ঠার জন্য দরকার সাংস্কৃতিক বিপ্লব। এই বিপ্লব ও আন্দোলনে আমাদের সবাইকে অংশগ্রহণ করতে হবে।
ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে, বাংলাদেশ’ ব্যানারে আয়োজিত সিলেট বিভাগীয় সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশের সমস্ত জায়গায়, পাহাড় সমতলে অব্যাহত ধর্ষণ, বিচার বহির্ভূত হত্যাকান্ড ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে ‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ, সিলেট’র বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত।
শুক্রবার বিকেল ৩ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত সিলেটের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।


বিভাগীয় সমাবেশে সফল করতে সিলেট বিভাগের চার জেলা থেকে প্রগতিশীল ছাত্র, যুব, নারী ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা সমাবেশ উপস্থিত হয়। এ সময় ধর্ষণ বিরোধী স্লোগানে মুখরিত হয় সমাবেশ স্থল।
বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী সিলেট জেলা সংসদের সভাপতি এনায়েত হাসান মানিকের সভাপতিত্বে ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট সিলেট নগরের সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাসের সঞ্চালনায় বিভাগীয় সমাবেশে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য দেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাসুদ রানা, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজন, ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য সরোজ কান্তি, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আরিফ মইনুদ্দিন, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত, বাংলাদেশ যুব কেন্দ্রীয় সদস্য নিরঞ্জন দাস খোকন, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কেন্দ্রীয় সদস্য নাজিকুল ইসলাম রানা।
সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন, বিজ্ঞান আন্দোলন মঞ্চ সিলেট জেলার সমন্বয়ক প্রণব জ্যাতি পাল, নারী মুক্তি কেন্দ্র সিলেট জেলার আহ্বায়ক তাহমিনা আহমদ, যুব ইউনিয়ন সিলেট জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজালাল সুমন, চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সংগঠক রুবাইয়াত আহমদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট মৌলভীবাজার বিভাগীয় ইনচার্জ রেহনুমা রোবাইয়াৎ, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন সুনামগঞ্জ জেলার সভাপতি আসাদ মনি, মহিলা ফোরাম মৌলভীবাজার জেলার সংগঠক মাসুমা খানম, ছাত্র ফ্রন্টের সিলেট নগরের সংগঠক ফাহিম আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।
এসময় সংহতি জানিয়ে উপস্থিত ছিলেন বাসদ কেন্দ্রীয় বর্ধিত পাঠচক্র ফোরামের সদস্য অ্যাডভোকেট মইনুর রহমান মগনু, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন সুমন, বাম গণতান্ত্রিক জোট ও বাসদ সিলেট জেলার সমন্বয়ক আবু জাফর, বাসদ (মার্কসবাদী) সিলেট জেলার সদস্য অ্যাডভোকেট হুমায়ুন রশিদ সোয়েব, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সংসদের সদস্য সুবিনয় রায় শুভ, দুষ্কাল প্রতিরোধে আমরা’র সংগঠক আব্দুল করিম কিম প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধে যে চেতনা নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছিল সেই চেতনার বিপরীতে ক্ষমতা কেন্দ্রীক রাজনীতির কারণে আজ বিচারহীনতার সংস্কৃতি তৈরি হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধে যে তরুণরা জীবনবাজি রেখে মা-বোনের সঙ্গম রক্ষার করেছিল সেই তরুণরা অপরাজনীতি ও মূল্যবোধহীন সংস্কৃতির কারণে আজকের তরুণ-যুবারা ধর্ষণ, নারী নিপিড়নের মতো ঘটনায় যুক্ত হচ্ছে। এই অন্ধকার সমাজ থেকে বেরিয়ে আসতে প্রয়োজন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিপ্লব।
বক্তারা এই বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও ক্ষমতাকেন্দ্রিক রাজনীতির বিপরীতে সবাইকে ঐক্য বদ্ধ হওয়ার আহবান জানান এবং দেশব্যাপী চলমান ধর্ষণ ও বিচারহীনতার প্রতিবাদে বাংলাদেশের প্রতিটি জায়গায় সমাবেশের ঘোষণা দেন। আগামী ১৫ নভেম্বর খাগড়াছড়িতে সমাবেশেরও ঘোষণা দেন বক্তারা।