মাদরাসায় চাকরি না পেয়ে স্বাক্ষর জালিয়াতি

তাহিরপুর প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসায় চাকরি না পেয়ে লোক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে আবেদনকারী প্রার্থীদের স্বাক্ষর জালিয়াতি করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন অংশগ্রহণকারী এক যুবক। রোববার দুপুরে জাল স্বাক্ষরকারীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে ইউএনওর কাছে পৃথক দুটি আবেদন করেছেন অপর ৩ আবেদনকারী। তারা হলেন, শবনম আক্তার, রুবিনা আক্তার ও সাইদুর রহমান অপু। সূত্রে জানা যায়, ৪ নভেম্বর মাদরাসায় নিয়োগ পরীক্ষায় আবেদন করেন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার পদে জাহাঙ্গীর আলম ভুঁইয়া, শবনম আক্তার ও রুবিনা আক্তার রুবি এবং নিরাপত্তা কর্মী পদে সাইদুর রহমান অপু।
এরই ধারাবাহিকতায় ২৭ অক্টোবর তাহিরপুর হিফজুল উলুম মাদ্রসার নিয়োগ পরীক্ষা সিলেট আলিয়া মাদরাসায় অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার, অফিস সহকারী কাম হিসাব সহকারী, নিরাপত্তা কর্মী ও আয়া পদে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রার্থীরা নির্বাচিত হন এবং তাৎক্ষনিক ফলাফল সিলেট আলিয়া মাদরাসা প্রাঙ্গণে ঘোষণা করা হয়।
পরে নির্বাচিত প্রার্থীরা যোগদানপত্র হাতে নিয়ে যথারীতি পহেলা নভেম্বর তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসায় যোগদান করেন। তারা যোগ দেয়ার ৩ দিন পর অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার পদে চাকরি না পেয়ে স্বাক্ষর জালিয়াতি করে আবেদনকারী জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া নিয়োগে অনিয়ম হয়েছে বলে অভিযোগ এনে ৪ নভেম্বর তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট একটি লিখিত আবেদন করে। ঐ আবেদনে ২, ৩ ও ৪ নম্বর ক্রমিকে অপু মিয়া, শবনম আক্তার ও রুবিনা আক্তার রুবির নাম স্বাক্ষর জালিয়াতি করে সে তিলকে তেল বানিয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করে। অপু মিয়া, শবনম আক্তার ও রুবিনা আক্তার রুবি বিষয়টি বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেয়ে রোববার দুপুরে তারা এর সুবিচার চেয়ে তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত আবেদন করেন। আবেদনে তারা উল্লেখ করেন, তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসায় লোক নিয়োগ পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এতে তাদের কোন আপত্তি নেই। নিয়োগ বোর্ডের সদস্য তাহিরপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা পরিচালকের প্রতিনিধি ছিলেন সিলেট সরকারী আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ প্রফেসর আলী আহমদ খান। তিনি তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসায় লোক নিয়োগে যাবতীয় পরীক্ষা ও প্রার্থী যাচাই-বাছাই শেষে নিয়োগ চূড়ান্ত করেছেন।
নিয়োগ বোর্ডের অপর সদস্য তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান বলেন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার পদে আবেদনকারী জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া লিখিত পরীক্ষায় ৫ মার্কস পেয়েছে। সে চাকরি না পেয়ে অন্যায়ভাবে সুবিধা নিতে নানান রাস্তায় হাঁটছে এবং অপপ্রচার করছে। তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম বলেন, সুষ্টুভাবে তাহিরপুর হিফজুল উলুম আলিম মাদরাসায় লোক নিয়োগ করা হয়েছে। কোন প্রকার অনিয়ম দুর্নীতি হয়নি।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পদ্মাসন সিংহ বলেন, অভিযোগে জাল স্বাক্ষরের প্রমাণ পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।