প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে গোলাপগঞ্জে সমাবেশ

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ড করায় প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে গোলাপগঞ্জে উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে মিছিল

ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের বিধান করে মন্ত্রীসভায় সংশোধিত “নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর খসড়া অনুমোদন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে গোলাপগঞ্জে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে গোলাপগঞ্জ উপজেলা ও পৌর ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে এ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি পৌর শহরের দাঁড়িপাতন চত্বর থেকে শুরু হয়ে পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পৌরসভা গেইটের সামনে এক পথসভায় মিলিত হয়। এসময় পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কামরান আহমদের সভাপতিত্বে ও যুবলীগ নেতা ফখরুল ইসলামের পরিচালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম রাবেল।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার সাধারণ মানুষের কল্যাণে বিভিন্ন দিক বিবেচনা করে জনবান্ধব কর্মসূচি গ্রহণ করে। জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর। দেশের মানুষের নিরপত্তার কথা বিবেচনা করে আওয়ামী সরকার ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের আইন খসড়া অনুমোদন দিয়েছে। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তিনি স্বাগত জানান। তিনি দেশের নিরাপত্তা ও সার্বিক উন্নয়নে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে শেখ হাসিনার হাত কে শক্তিশালী করার আহবান জানান। তিনি বলেন, ৩ নভেম্বর জাতীয় জেল হত্যা দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে জাতীয় চার নেতাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। তিনি তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। এছাড়াও ফ্রান্স সরকারের মদদে মহানবী (সা.) কে অবমাননার তীব্র নিন্দা জানান।
পথসভায় বক্তব্য রাখেন বুধবারীবাজার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফতার হোসেন, আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ কামরান হোসেন, সাবেক যুবলীগ নেতা এনায়েত করিম খোকন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ-জনশক্তি কর্মসংস্হান সম্পাদক আকবর হোসেন লাবলু, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক উপ-আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক মনিরুল হক পিনু, বুধবারীবাজার ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাজু আহমদ, পৌর ছাত্রলীগ নেতা সাবের হোসেন নয়ন, মাহফুজুর রহমান নাজির, বুধবারীবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাপু আহমদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌর আওয়ামী লীগ নেতা ও পৌর কাউন্সিলর এম ফজলুল আলম, বাঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল আহমদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হানিফ খান, আমুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা হোসেন আহমদ খোকা, বাঘা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মকছুদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, হেলাল আহমদ কয়েছ, আওয়ামী লীগ নেতা সাহেল আহমদ, তুরন তালুকদার, ফয়ছল আহমদ, মছলু উদ্দিন, যুবলীগ নেতা মুজিব আহমদ, দেলোয়ার হোসেন দুলু, কবির আহমদ, বাদেপাশা যুবলীগ নেতা রুহুল আমিন, ফখর আহমদ, জাকির আহমদ, বায়েস আহমদ, আবুল হোসেন, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা আজমান আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা সাকিল হোসেন, আরাফাত হক, হাছান আহমদ, রাশেদ আহমদ, সাইফুল হোসেন, তানভীর হোসেন, পারভেজ আহমদ, সাজিদুর রহমান প্রমুখ।-প্রেসরিলিজ