শিববাড়িতে কিশোরের মৃত্যু নিয়ে রহস্য

দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধি
সিলেটের দক্ষিণ সুরমার জহিরুল ইসলাম (১৬) নামের এক কিশোর ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার দুপুরে মারা গেছে। সে মাদক ব্যবসায়ীদের হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলো বলে অভিযোগ নিহতের পরিবার। তবে পুলিশ জানিয়েছে, সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হওয়ার কথা উল্লেখ করে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো।
নিহত জহিরুল ইসলাম সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা থানার সিরাই গ্রামের নজরুল মিয়ার ছেলে। দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকার একটি বাসায় ভাড়া থাকতো জহিরুলের পরিবার। সোমবার জহিরুলের উপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করেছে তার পরিবার।
আহত কিশোরের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করে মোগলবাজার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম বলেন, সোমবার রাতে এক অটোরিকশা চালক জহিরুলকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করে দিয়ে যায়। জহিরুল সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে বলে ভর্তির সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। তবে নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, মাদক ব্যবসায়ীরা মারধর করে জহিরুলকে গুরুতর আহত করে। এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।
একই তথ্য জানিয়ে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (গণমাধ্যম) আশরাফ সিদ্দিকী বলেছেন, ঘটনাটি ঘটেছে রেলওয়ে থানা এলাকায়। মহানগর পুলিশের দক্ষিণ জোনের কর্মকর্তারা রেলওয়ে পুলিশের সাথে মিলে বিসয়টি তদন্ত করে দেখছেন।
তবে নিহতের ভাই দীন ইসলামের অভিযোগ, সোমবার সন্ধ্যায় জৈনপুর এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলামের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে জহিরুল ইসলামকে আহত করা হয়। মাদক ব্যবসায়ী রাজী না হওয়ায় এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ তার।
মারধরের পর হামলাকারীরা পালিয়ে গেলে স্থানীয়রা জহিরুলকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেন বলে জানিয়েছেন দীন ইসলাম।