নিশারুল আরিফের বিশেষ অ্যাসাইনমেন্ট

স্টাফ রিপোর্ট
সিলেটের বন্দরবাজার ফাঁড়িত নির্যাতনের পর হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করা রায়হান হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত প্রধান অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করার অ্যাসাইনমেন্ট নিয়েই সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) কমিশনার হিসাবে কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন বলে জানালেন নিশারুল আরিফ। মঙ্গলবার বিকেলে সিলেট পৌঁছে হযরত শাহজালাল (রাহ.) এর মাজার জিয়ারতের পরপরই তিনি রাত সাড়ে ৮টার দিকে আখালিয়ার নেহারিপাড়ায় রায়হানের বাড়ি পৌঁছান। সেখানে সন্তানহারা মা, স্বামী হারা স্ত্রী ও পিতাহারা অবুঝ শিশুর কাছে বসে কথা বলেছেন, সান্ত্বনা ও আশ্বাস দিয়েছেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোখলেছুর রহমান কামরান।
রায়হানের পরিবারের সদস্যদের, বিশেষ করে তার মা সালমা বেগমের উদ্দেশ্যে নবনিযুক্ত কমিশনার বলেছেন, ঘটনাটি শুধু পুলিশ বাহিনীর জন্যই নয়, সবার জন্য লজ্জার। এসময় তিনি দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করে আশ্বাস দিয়েছেন, আমরা তাদের ছাড়ব না। ঘটনার সাথে যারাই সংশ্লিষ্ট রয়েছে তাদের গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি করতে চেষ্টার কোন ত্রুটি রাখবোনা।
এরপর এসএমপির নতুন কমিশনার সেখানে সমবেত সংবাদকর্মীদের মুখোমুখি হন। বিভিন্ন প্রশ্নে জবাবে তিনি বলেন, অপরাধী সে যে বাহিনীরই হোক না কেন, সে অপরাধীই। যেহেতু পুলিশ এ ঘটনায় অভিযুক্ত, সে কারণে আমি লজ্জিত। এখন আমাদের মূল টার্গেট আসামীদের গ্রেপ্তার করা। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সকরারেরও কঠোর নির্দেশনা আছে। জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে বিচারের আওতায় আনতে হবে। আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করব। এই অ্যাসাইনমেন্ট নিয়েই আমি সিলেট এসেছি। তিনি আসামীদের গ্রেপ্তারে সবার সহযোগীতা চেয়েছেন।
রায়হানের পরিবারের সদস্যদের দাবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি কথা বলেছি। তাদের দাবি মূল আসামীকে গ্রেপ্তার করা। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী এ চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। জড়িত সবাইকেই আমরা গ্রেপ্তার করব।